কবি আরমান হোসেন এর কবিতা -“ এই তো সেদিন”।

        
এই তো সেদিন পড়ন্ত বিকেলে মেয়েটার সাথে আকাশ দেখলাম।
মেয়েটা বলল- তুমি কি আকাশ হবে, গোধূলির আবীরে রাঙিয়ে দিবে আমায়?
আমি বললাম- হুম, দিব্যি হবো। তুমি চাইলেই যখন তখন বিচ্ছুরণ ঘটাবো।
মেয়েটা বলল- আচ্ছা, প্রেমে পড়লে সবাই কেন আকাশ ছুঁতে চায়?
আমি বললাম- প্রেম আকাশের মতো বিশাল তাই।
.
এই তো সেদিন মেয়েটার সাথে নদীর তীরে দাঁড়িয়ে সূর্যাস্ত দেখলাম। 
আমি বললাম- এখন তো সন্ধ্যা নেমে আসবে, অন্ধকারে ঢেকে যাবে সব।
মেয়েটা বলল- ভয় নেই, আমি চাঁদ হতে জানি।
আমি বললাম- ও তাই! তারপর? 
মেয়েটা বলল- তারপর তোমার উঠানে ঝরে পড়ব।
আমি একগাল হেসে বললাম- আচ্ছা চাঁদ কি ছেলে না মেয়ে?
মেয়েটাও একগাল হেসে বলল- চাঁদ হলো প্রেম, এবার বুঝে নাও সে ছেলে না মেয়ে। 
.
এই তো সেদিন মেয়েটার সাথে  রাজহাঁসটিকে নদীর জলে ভাসতে দেখলাম।
মেয়েটা বলল- তুমি কি রাজহাঁস হতে পারবে?
আমি বললাম- সময় সুযোগ পেলে সব পুরুষই তা পারে।
নদীতে ঢেউ ছিল না বলে মেয়েটা একটা ঢিল ছুঁড়ে মারল
আর অমনি জলকণা নদীর বুকে তরঙ্গের সৃষ্টি করল।
.
এই তো সেদিন কাশের আড়ালে মেয়েটার সাথে চুটিয়ে প্রেম করলাম। 
মেয়েটা বলল- তোমার কাছে জীবন কেমন?
আমি বললাম- জীবন হয় এমন "কিছু মেঘ–কিছু রোদ, সবশেষে শোধবোধ "।
মেয়েটা আবার একগাল হেসে বলল- আচ্ছা সত্যি করে বলো তো তুমি কবি হলে কবে?
আমিও একগাল হেসে বললাম- কবি নয়, প্রেমিক হয়ে কথাখান বলেছি তবে।

কোন মন্তব্য নেই

Featured post

কবি শায়লা খান এর কবিতা - “জন্মান্তর”।

         কিছুটা ভুল তোমারও ছিল, কিছুটা আমার এই নিয়ে কতনা খুনসুটি চলে মান অভিমান, কেউ কারো কাছে হইনা পরাজিত  মানিনা হার, এটাই বুঝি আত্ম অহংকা...

Blogger দ্বারা পরিচালিত.